text

এখনই চিন্তা হয় বাংলা নিয়ে।

ভবিষ্যতের বাংলা আমার কাছে নাইটমেয়ার। কী যে তার চেহারা দাঁড়াবে আমি জানি না। ২৫ কোটি লোক বাংলা বলতে পারে। বলে না।

আধ ঘণ্টা দূরে বাংলাদেশ। সেখানেও অবস্থা খারাপের দিকে। বাংলা পৃথিবীর পাঁচ নম্বর ভাষা। তবু বাঙালিরাই বাংলাকে পাত্তা দেয় না। চাকর বাকরের ভাষা মনে করে। ছেলেময়েকে ইংরেজি ধরিয়ে দিয়ে নিজেদের অভিজাত ভাবে। বাংলা সাহিত্য তার জায়গা হারাচ্ছে। দ্রুত। কুড়ি বছর বাদে বাংলা সাহিত্য লেখা হবে ইংরেজিতে। বাংলা কবিতা নিয়ে আমার সে রকম কোন মাথাব্যথা নেই। বাংলা কবিতা লেখে গরিব ছেলেমেয়েরা। তাঁরা লিখে যাবেন। তাঁদের মাতৃভাষা ছাড়া কোন বিকল্প নেই। গরিব কবিরাই হয়ত বাংলা ভাষার শেষ রক্ষক হিসেবে দাঁড়িয়ে থাকবেন। তাঁদের পাশ কাটিয়ে সবাই চলে যাবেন, দু-দণ্ড তাকিয়েও দেখবেন না।

তবু আমরা প্রতিদিন ভাষানগর বের করার পরিকল্পনা করেছি। সেটা কীরকম? ডিজিটাল ভাষানগর শুরু হল আজ থেকে। মল্লিকার জন্মদিনকে মনে রেখে। আজ থেকে প্রতিদিন। প্রতিদিন একটা না একটা নতুন লেখা পাবেন এখানে। একটা নতুন কবিতা হয়ত একটা নতুন অনুবাদ তা হতে পারে মণিপুর কিংবা মেক্সিকোর তরুণ কবির কবিতা। নতুন একটা গল্প কিম্বা নতুন একটা সাক্ষাৎকার অথবা গোলটেবিল। এবং মাঝে মাঝে ধাক্কা দেওয়া বিতর্ক।

ভাষানগর ২৮ বছর ধরে চলছে। আরও ২৮ বছর চলবে।

text
text
text

মল্লিকা সেনগুপ্ত পুরস্কার সন্ধ্যা