দুর্গা বেরার কবিতা

0
162
Durga Bera

দুর্গা বেরার (Durga Bera) জন্ম নদীয়া জেলায়। বারাসাতে থাকেন। ছ’টি কবিতার বই প্রকাশিত হয়েছে। কয়েকটি বইয়ের নাম– ও নতুন বছর, না বলা কথা, ‘ভালবাসি’ মুখে বলতে হয় না।

বানভাসি

সুন্দরী ঘেরা সুন্দরবনে- যারা ঝুঁপড়ি কুঁড়েতে থাকে-
ভালো ‘বাসা’ হীন ওরাই কেবল ভালোবেসে হেসে থাকে।

তোমার যাপন রোদেলা আকাশ, ওদের যাপন মেঘলা।
ওরাই থাকে আঁধার আগলে, ওরাই কেবল একলা।

ওদের আছে অগোছালো দিন, অভাবের বারো মাস,
নদীতে কুমীর, নোনা হাওয়া, বাঘেদের সাথে বাস।

চারদিকে জল থই থই করে, মাঝে ওরা বানভাসি।
ওদের ‘মৃত্যু সংলাপ’ লেখে বন‍্যার জলরাশি।

ওরা ভাসে, ওরা ভেসে ভেসে ভাসানের ভাষা লেখে।
যেভাবে নদীর জলে তলিয়ে যাওয়া পয়সা তোমাকে দেখে…

বানের তোড়ে নদী নদীবাঁধ– যখন জলের তলে,
ভেসে যাওয়া লাশ ইতিহাস লেখে ভাসানের পলে পলে।

ওরা ধসে যায় বন‍্যা ঝড়ে শেষ যাত্রার পথে।
নদী থেকে নদী রাত কেটে যায় নৌকো নামক রথে।

ওরা নৌকো ভরে ইলিশ ধরে গেঁড়ি গুগলি খায়।
মাছের উপর ভাসা প্রাণের ‘মাছ’ থাকে নোলায়।

ওরাই ফলায় সোনার ফসল, কাঁধে মিলিয়ে কাঁধ।
ওরা’ই গড়ে বানভাসি জলে মানুষের নদীবাঁধ।

ওরা পিষে থাকে, ওরা মিশে থাকে- নদী থেকে নদীচরে।
ওরা কারিগর, ওরা মৃত্যুর পথে জীবন সেলাই করে।

ওরা জয়ের জন্য লড়তে জানে, লড়ার জন্য মরতে।
ওদেরও আছে বাঁচার তাগিদ, ওরাও জানে গড়তে।

ওরাও চায় তোমার মতো ‘রোটি কাপড়া অউর মকান’।
সমানে সমানে ওরা হতে চায়- গৌণ থেকে প্রধান।

ওরাও দেখে নতুন স্বপ্ন, নতুন সূর্য ওঠা।
ওরাও চায় নতুন বাড়ি, নতুন দালান কোঠা।

ওরা উপোসী, ওরা উপাসক, ওদের না হোক মত্।
ওদের কেবল লড়াই জীবন, লড়াই ভবিষ্যৎ।।